Wednesday, January 20, 2021
Home আজকের ফতোয়া কাউকে পছন্দ হলে ওকে পেতে কি করতে হবে

কাউকে পছন্দ হলে ওকে পেতে কি করতে হবে

 

মুফতি মাসউদুর রহমান ওবাইদী

কাউকে পছন্দ হলে ওকে পেতে কি করতে হবে

প্রশ্নঃকোন ছেলে যদি কোন মেয়েকে দেখে মন থেকে চয়েজ হয় বা কোন মেয়ে যদি কোন ছেলেকে  দেখে মন থেকে চয়েজ  হয় তাহলে তাকে জীবনসঙ্গী হিসাবে কাছে পাওয়ার জন্য কোন আমল আছে কিনা???প্লিজ জানালে উপকৃত হব

উত্তরঃআল্লাহ তাআলা কুরআনে বলেন,”তোমরা আমার কাছে সাহায্য চাও ধৈর্য্য ও নামাজের মাধ্যমে।”

বিজ্ঞাপনImage is not loaded

 তাই আল্লাহর কাছে কোনকিছু চাইলে নিয়মিত নামাজ পড়তে হবে।নামাজ না পড়লে নিয়মিত পাচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ না পড়ে দোয়া করলে এটা আল্লাহর সাথে বাটপারী করা হয়।

তাই শর্ত হল নিয়মিত পাচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ পড়তে হবে। পাশাপাশি  যেকোন মনের আশা পূরণের জন্য সালাতুল হাজত নামাজ পড়তে হয়।

আল্লাহর উপর ভরসা করে  আল্লাহর কাছে  কোন কিছু চাইলে আল্লাহ তাআলা তা ফিরিয়ে দেন না।আল্লাহ ছাড়া সাহায্য করার আর কেউ নেই।আল্লাহই একমাত্র সাহায্যকারী।আল্লাহই মনের আশা পূরণ করার একমাত্র মালিক।

আর  কাউকে মন থেকে ভাল লাগলে জীবনসঙ্গী হিসেবে কাছে পাওয়ার জন্য আল্লাহর কাছে চাইলে কোন দোস নেই।আর বিশেষকরে আপনি যাকে জীবনসঙ্গী হিসাবে কাছে পেতে চান তা কল্যাণকর  বা অকল্যানকর উভয়ই হতে পারে তাই এজন্য পবিত্র কুরআনে  বর্ণিত সর্বশ্রেষ্ট দোয়াটি  নিয়মিত নামাজ পড়ে পড়তে পারেন। দোয়াটি হল 

ﺭَﺑَّﻨَﺎ ﺁﺗِﻨَﺎ ﻓِﻲ ﺍﻟﺪُّﻧْﻴَﺎ ﺣَﺴَﻨَﺔً ﻭَﻓِﻲ ﺍﻵﺧِﺮَﺓِ ﺣَﺴَﻨَﺔً ﻭَﻗِﻨَﺎ ﻋَﺬَﺍﺏَ ﺍﻟﻨَّﺎﺭِ 

রব্বানা আতিনা ফিদ্দুনিয়া হাসানাতাও ওয়াফিল আখিরতি হাসানাতাও ওয়াকিনা আযাবান্নার) দলিলঃসূরা বাকারাহঃ২০১

অর্থঃহে আমাদের প্রভু প্রতিপালক! আমাদেরকে দুনিয়া ও আখিরাতের সর্বোত্তম কল্যাণ দান করো এবং আগুনের আযাব হতে আমাদের রক্ষা করো।

উপরের দোয়াটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ কারন এ দোয়ার মাধ্যমে দুনিয়া ও আখিরাতের সব কল্যাণ চাওয়া হয়।এ দোয়াটি সব ধরনের মনে আশা পূরণের দোয়া।এ দোয়াটি নামাজ পড়ে বেশি বেশি পড়তে হবে।খুব বিশ্বাস ও আন্তরিকতার সাথে দোয়াটি  নামাজে পড়ে  আপনার মনের আশা আল্লাহর কাছে বলবেন। আপনি যাকে জীবনসঙ্গী হিসাবে কাছে পেতে চান সে যদি আপনার জন্য দুনিয়া ও আখিরাতের কল্যান হয় তাহলে আল্লাহ তাআলা অবশ্যই  কবুল করবেন।আল্লাহ দিতে পারেন।ইনশা-আল্লাহ। 

এছাড়াও নিচের দুইটি আমলও  বেশি বেশি করতে হবে।দোয়াটি হল –

رَبِّ اِنِّیۡ لِمَاۤ اَنۡزَلۡتَ اِلَیَّ مِنۡ خَیۡرٍ فَقِیۡرٌ

উচ্চারনঃরব্বি ইন্নি লিমা আংযালতা ইলাইয়া মিন খইরিন ফাকিরু।

(দোয়াটি আরবী দেখে  অবশ্যই শুদ্ধভাবে পড়তে হবে)

অর্থ: হে আমার পালনকর্তা, তুমি আমার প্রতি যে অনুগ্রহ নাযিল করবে, আমি তার মুখাপেক্ষী। [সুরা কাসাস: ২৪]

আল্লাহ তাআলার শিখিয়ে দেয়া কুরআনি এই দুআটি গুরুত্বপূর্ণ এবং ব্যাপক অর্থপূর্ণ। এ দোয়াটিও পড়বেন।দোয়াটি হল 

رَبَّنَا هَبۡ لَنَا مِنۡ اَزۡوَاجِنَا وَذُرِّیّٰتِنَا قُرَّۃَ اَعۡیُنٍ وَّاجۡعَلۡنَا لِلۡمُتَّقِیۡنَ اِمَامًا.

রব্বানা হাবলানা মিন আঝওয়াজিনা ওয়াজুর্রিই ইয়াতিনা কু’ররতা আ’ইউনিও ওয়াজআলনা লিল মুত্তাকীনা ইমা-মা

(দোয়াটি অবশ্যই আরবী দেখে শুদ্ধভাবে পড়তে হবে)

অর্থ: হে আমাদের পালনকর্তা, আমাদের স্ত্রীদের পক্ষ থেকে এবং আমাদের সন্তানের পক্ষ থেকে আমাদের জন্যে চোখের শীতলতা দান কর এবং আমাদেরকে মুত্তাকীদের জন্যে আদর্শস্বরূপ কর। [সুরা ফুরকান:৭৪]

আর বিশেষকরে বেশি বেশি তওবা ও ইস্তিগফার করুন। বেশি করে সালাতুল হাজত পড়ে আল্লাহর নিকট সাহায্য চান। কারণ হল সালাতুল হাজাত নামাজ মনের আশা পূরণের নামাজ।সালাতুল হাজাত নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে আপনার মনের আশা  প্রকাশ করুন।পেয়ে যাবেন।ইনশা-আল্লাহ

তাই বেশি সালাতুল হাজাত নামাজ পড়বেন আর  নিয়মিত পাচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে  উপরের দোয়াগুলো পড়বেন।আর তাহাজ্জুদ নামাজও  পড়ার জন্য চেষ্টা করতে হবে।কারন হল তাহাজ্জুদ নামাজের দোয়াটি আল্লাহ তাআলা পিরিয়ে দেন না।

আশা করি,বুজতে পারছেন।

ধৈর্যধারণ করে এই আমলগুলো করতে থাকুন। আল্লাহ তাআলার প্রতি দৃঢ় আস্থা ও বিশ্বাস রাখুন। ইনশাআল্লাহ!

আল্লাহ আপনার মনের আশা পূরন করবেন, ভালবাসার মনের মানুষটিকে  পাবেন।ইনশা-আল্লাহ।

দোয়া করি। 

আল্লাহ তাআলা সব মুমিন দ্বীনদার  ভাই বোনদেরকে যেন উত্তম জীবনসঙ্গী দান করেন।আমিন।ইয়া রব্বুল আলামীন।

জনপ্রিয় খবর