মুসলিম উম্মাহর ঐক্যের পয়গাম খুতবার অনুবাদ

82

শিখো বাংলায়: মুসলিম উম্মাহর ঐক্যের পয়গাম

খুতবার অনুবাদ…

ঐতিহাসিক আয়া সুফিয়া মসজিদে দীর্ঘ ৮৬ বছর পর জুমুআ আদায়ের মধ্য দিয়ে প্রথম নামায অনুষ্ঠিত হয়। জুমুআর নামাযে ইমামতি করেন ধর্মমন্ত্রী প্রফেসর ড. আলি এরবাশ। উসমানি রীতি মোতাবেক কুরআনের আয়াত খচিত তরবারি হাতে নিয়ে ধর্মমন্ত্রী মিম্বরে আরোহন করেন। প্রথমে উপস্থিত মসল্লীদের প্রতি আল্লাহর রতমত নাযিলের দুআ করে এরবাশ বলেন, মোবারক এই সময়ে পূন্যময় এই স্থানে আমরা ঐতিহাসিক একটি সময় অতিবাহিত করছি।
খুতবায় ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘আয়া সুফিয়া কুরবানি ঈদের একেবারে আগ মুহুর্তে, পবিত্র জিলহজ্জ মাসের তৃতীয় দিনে নামাযীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হচ্ছে। আজকের পর তুর্কী জাতির অন্তরে ব্যথা বেদনায় রূপ নেয়া আয়া সুফিয়ার প্রতি আক্ষেপ দূর হবে। তাই প্রথমে মহান আল্লাহর অসংখ্য শুকরিয়া আদায় করি।
আজ আয়া সুফিয়ার গম্বুজ থেকে ‘আল্লাহু আকবার’ ‘লা ইলাহা ইল্লাহ’ ও দরূদের মধুর ধ্বনী ভেসে আসার দিন। আযানের সুমধুর সুর আজ আয়া সুফিয়ার সুউচ্চ মিনারা থেকে ইথারে পাতারে ছড়িয়ে পড়ার দিন। আজ খুশিতে চোখে আসা পানি নিয়ে নামাযে দাঁড়ানো, খুশু খুজুর সাথে রুকুতে যাওয়া ও কৃতজ্ঞতায় মহান আল্লাহর সামনে নিজেদের লালাট মাটিতে ঠেকানোর দিন। আজ বিনয় ও আত্মমর্যাদা প্রকাশের দিন। এমন একটি দিন আমাদেরকে উপহারদাতা, এই জগতের সর্বোচ্চ মর্যাদাপূর্ণ স্থান মসজিদে আমাদেরকে একত্রকারী ও পূণ্যময় ইবাদতগাহ আয়া সুফিয়াতে আমাদেরকে প্রবেশাধিকার প্রদানকারী ক্ষমতাধর আল্লাহর অসংখ্য কৃতজ্ঞতা আদায় করছি।
হাজার দরূদ ও সালাম সে মহামানবের প্রতি যিনি আনাগত আমাদেরকে সুসংবাদ প্রদান করে গেছেন নিন্মোক্ত ভাষায়, ‘কনস্টান্টিনোপল একদিন বিজয় হবেই। সে বিজয়ে নেতৃত্বদানকারী সেনাপতি কতই না উত্তম সেনাপতি এবং মহান সে বিজয়ের সৈনিকগুলো কতই না উত্তম সৈনিক।’ শত সহস্র সালাম বর্ষিত হোক প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের এই সুসংবাদের ভাগিদার হওয়ার জন্য পথে বেরিয়ে পড়া, ইস্তাম্বুলের আধ্যাত্মিক রাহবার আবু আইয়ুব আনসারি রাদিয়াল্লাহুর প্রতি। আরও সালাম বর্ষিত হোক তাঁর অন্যান্য সাহাবি ও তাদের পথের অনুসারি তাবেঈদের প্রতি।
ইসলামে ফাতহ তথা বিজয় মানে, ভোগদখল নয়; আবাদ করা, ধ্বংস করা নয়; উৎকর্ষতা সাধন করা। ইসলামের এই শিক্ষা বুকে ধারণ করে আনদলুতে আগমণকারী সুলতান আলপ আরসলান ও এখানকার মাটিকে মাতৃভূমি হিসেবে গ্রহণ করে আমাদের কাছে আমানত হিসেবে রেখে যাওয়া শহিদ, গাজি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here