শিখোবাংলায়.কম: কোভিড-১৯ মহামারীর মধ্যে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হলেও অনেকেই তা মানছেন না। এ কারণে ঢাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

সোমবার মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত সাংবাদিকদের জানাতে গিয়ে এ কথা বলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

তিনি বলেন, সবার মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোকে ইতিমধ্যে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কোভিড নিয়ে আরেকটু স্ট্রিক্ট ভিউতে যেতে হবে। সংক্রমণ একটু বেড়েও যাচ্ছে মনে হচ্ছে। সে জন্য আরেকটু সতর্কতা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

‘অলরেডি আমরা রোববার বলে দিয়েছি যাতে ঢাকাতেও বিভিন্ন জায়গায় মোবাইল কোর্ট (ভ্রাম্যমাণ আদালত) বা ল-এনফোর্সিং (আইন প্রয়োগকারী) এজেন্সি যাতে আরেকটু স্ট্রং হয়।’

মাস্ক পরা নিশ্চিতে ঢাকায় কবে থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে সেই প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আশা করি আগামী দুতিন দিনের মধ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শুরু হবে।

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে গত জুলাই মাসের শেষ দিকে বাসার বাইরে সব জায়গায় সবার মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে সরকার। সবার মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন জেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানাও করা হচ্ছে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এসেছে বলা হলেও নানা অজুহাতে এখনও অনেকে মাস্ক ব্যবহার করছেন না।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত ৮ মার্চ। প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। ইতিমধ্যে তা ৪ লাখ ৩২ হাজার পেরিয়ে গেছে। এ ভাইরাসে এ পর্যন্ত ৬ হাজার ১৯৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।