পবিত্র শহর আল কুদস সালাহউদ্দিন আইয়ুবী রহ. এর সবচেয়ে বড় আমানত: এরদোগান

21

শিখো বাংলায়: বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় মুসলিম ব্যক্তিত্ব ও প্রভাবশালী নেতা তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বলেছেন, ফিলিস্তিনের পবিত্র শহর আল কুদস সালাহউদ্দিন আইয়ুবী (রহ.) এর সবচেয়ে বড় আমানত।

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় অনুষ্ঠিত সালাহউদ্দিন আইয়ুবী (রহ.) শীর্ষক সেমিনারে তিনি এই মন্তব্য করেন।

সেমিনারে বক্তব্য প্রদানকালে এরদোগান বলেন, যারাই জেরুসালেম ও ফিলিস্তিনকে ইহুদীবাদী অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে সংযুক্তির পরিকল্পনাকে সমর্থন দিয়ে অবৈধ দখলকে বৈধতা দেয় এবং ফিলিস্তিনী ভাইদের অধিকারকে স্বীকৃতি দেয় না, প্রকৃতপক্ষে তারাই সালাহ উদ্দিন আইয়ুবী (রহ.) এর অপমানকারী।

সালাহউদ্দিন আইয়ুবী (রহ.)-কে জেরুসালেম বা পবিত্র শহর আল কুদস প্রেমী একজন প্রকৃত নেতা আখ্যায়িত করে তিনি আরো বলেন, তার মর্যাদা ও স্থান শুধু মুসলিমদেরই নয় বরং তার শত্রুদের অন্তরেও স্থান করে নিয়েছে।

ভয়ংকর ক্রুসেডারমুক্ত শান্তিময় পবিত্র আল কুদস সালাহউদ্দিন আইয়ুবী (রহ.) এর রেখে যাওয়া সবচেয়ে বড় আমানত উল্লেখ করে এরদোগান বলেন, মুসলমানদের দ্বিতীয় কিবলা খ্যাত পবিত্র আল কুদস সালাহউদ্দিন আইয়ুবী (রহ.) এর রেখে যাওয়া সেই বড় আমানত যা তিনি ভয়ংকর ক্রুসেডারদের থেকে মুক্ত করার পর সেখানে শান্তি ফিরিয়ে এনেছিলেন।

এছাড়াও এরদোগান বলেন, প্রত্যেক মুসলমানের দায়িত্ব হল, জেরুসালেম খ্যাত পবিত্র শহর আল কুদসকে সাহায্য করা, এর প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা ও এর ব্যাপারে গাইরত করা বা আত্মমর্যাদায় ভুগা।

অনুষ্ঠিত ওই সেমিনারের প্রেসিডেন্ট এরদোগান ইহুদীবাদী অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণ পরিকল্পনার এই সময়ে বেশি বেশি সালাহউদ্দিন আইয়ুবী (রহ.) শীর্ষক সেমিনার আয়োজনের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

উল্লেখ্য,আরব উপদ্বীপভূক্ত বহু আরব দেশ ও মুসলিম বিশ্বের অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ সত্ত্বেও বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত গত মাসের ১৫ সেপ্টেম্বর আমেরিকার হোয়াইট হাউসে ইহুদীবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের আওতায় একাধিক চুক্তি সম্পাদন করে।

মাজলুম ফিলিস্তিনীরা বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের এই জঘন্য পদক্ষেপকে বিশ্বাসঘাতকতা রূপে আখ্যায়িত করলেও উপসাগরীয় দেশ দুটি তাদের এই পদক্ষেপকে সার্বভৌম অধিকার হিসেবে দাবি করছে। এছাড়া অন্য দুটি আরব দেশ মিশর ও জর্ডান বহু আগেই (১৯৭৯ ও ১৯৯৪ সনে) ইহুদীবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণ স্বরূপ চুক্তি করেছিল। বিশ্বাসঘাতক এই দুই আরব রাষ্ট্রের তালিকায় এখন বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের নামও যুক্ত হল।

সূত্র: আল জাজিরা মুবাশির

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here