মুফতী  মাসউদুর রহমান ওবাইদী

প্রশ্নঃ (1) চুল রাখা ও কাটার সুন্নাত তরিকা কয়টি ও কি কি? 

(2) বর্তমান যুগে দেখা যায় চুল কাটার পদ্ধতি অনেক যেমন হাউছাঁট আর্মি ছাঁট ইত্যাদি৷ শহরে আরো অনেক রকমের ছাঁট রয়েছে ৷এর ঢং হলো, চুল কোথাও খাটো, কোথাও লম্বা, আবার কোথাও একেবারেই চাঁছা, এ ধরনের চুল কাটার হুকুম কি? হারাম, না মাকরূহ, না নাজায়েয? মাকরূহে  হলে তাহরীমী কি না?

(3)  চুল মুণ্ডানো,অর্থাৎ চেঁছে ফেলা সুন্নাত কি না? 

উত্তরঃ  চুল রাখা ও কাটার ব্যাপারে শরীয়ত কর্তৃক নির্ধারিত তিনটি পদ্ধতি রয়েছেঃ ( এক) বাবরি রাখা, (2) মুণ্ডিয়ে ফেলা,(3)সমস্ত চুল সমান করে কাটা৷ উক্ত  তিন পদ্ধতির প্রথম পদ্ধতিটি সর্বসম্মতিক্রমে সুন্নাত ৷দ্বিতীয় পদ্ধতি নির্ভরযোগ্য মতানুযায়ী সুন্নাত৷ কিন্তু শষোক্ত পদ্ধতিটি সুন্নত নয় ৷বরং ওলামায়েকেরাম তা বৈধ বলেছেন৷ সুতরাং উক্ত তিন পদ্ধতির বহির্ভূত অন্য কোন পদ্ধতিতে চুল রাখা ও কাটা বিশেষ করে চুলের কিছু অংশ চেঁছে  ফেলা মাকরূহে তাহরীমী৷ অতএব ইংরেজদের অনুকরণে বর্তমান যুগের ইউছাঁট,হিপপি ছাঁট, আর্মি ছাঁট ইত্যাদি নিত্যনতুন পদ্ধতিগুলো শরীয়ত পরিপন্থী তথা মাকরূহে তাহরীমী হওয়ায় মুসলমানদের জন্য বর্জনীয়৷

চুল মুণ্ডানো,অর্থাৎ চেঁছে ফেলা,নারিয়া করা সুন্নাত৷

দলিলঃসুনানে আবু দাউদ হাদিস নং(356)এবং(4196)এবং(4195)এবং(4187-4183)

ফতোয়ায়ে আলমগীরী 5/357( জাকারিয়া)

রদ্দুল মুহতার 6/407( সাঈদ)

 আহসানুল ফতোয়া 8/86( সাঈদ)

ফতোয়ায়ে মাহমুদিয়া 5/149( জাকারিয়া)

আহসানুল ফতোয়া 8/80(সাঈদ)৷