কওমি মাদরাসা খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার

52

শিখো বাংলায়: কওমি মাদরাসা খুলে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে সরকার। আজ জাতীয় দীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের সহ-সভাপতি ড. মাওলানা মুশতাক আহমদ তার ফেসবুকে এ তথ্য জানান। এরপর মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ এক ভিডিও বার্তায় এ সংবাদ নিশ্চিত করেছেন। তবে এখনও এ ব্যাপারে কোনো প্রজ্ঞাপন জারী হয়নি বা সরকারের পক্ষ থেকে কোনো নির্দেশনা আসেনি।

মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ চার মিনিট একত্রিশ সেকেন্ডের ভিডিও বার্তায় বলেন, “আমি আজ সকালে ধন্যবাদ জানিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কেবিনেট সচিব মহোদয়কে একটি ম্যাসেজ দিলাম। এরপর সকাল নয়টা সাত মিনিটে উনার একটি ম্যাসেজ পেলাম। ম্যাসেজে দেয়া উনার কথাই আমি আপনাদের পড়ে শুনাচ্ছি।

তিনি লেখেন, ‘ওয়ালাইকুম সালাম! মাই থ্যাংকস! টেক পিপারেশন ফর এর‌্যাঞ্জিং এক্সামেনেশন।’ অর্থাৎ তিনি খুব দ্রুত পরীক্ষার প্রস্তুতি গ্রহণের জন্য আমাদের অনুরোধ করেছেন। সেই পরিপ্রেক্ষিত আমি আপনাদের সুসংবাদ দিতে চাই যে, খুব দ্রুত হাইয়াতুল উলইয়ার মিটিং ডেকে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হবে ইনশাআল্লাহ। আপনারা প্রস্তুত থাকুন। এবং আমরা ধরে নিতে মাদরাসার কিতাব বিভাগের খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার। তাই কিতাব বিভাগের কার্যক্রমও এখন থেকে আমরা চালু করতে পারি। আশা করি আর কোন সরকারী বাঁধা আসবে না ইনশাআল্লাহ। তাই নির্বিঘ্নে-নিশিন্তে কিতাব বিভাগের শিক্ষা কার্যক্রম স্বাস্ব্যবিধি মেনে আমরা চালু করতে পারবো ইনশাআল্লাহ।”

তিনি সবাইকে সতর্ক করে বলেন, একথা সকলের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে, স্বাস্ব্যবিধির প্রতি যত্মবান হওয়া প্রতিটি মাদরাসার দায়িত্বশীল যারা আছেন, তাদের জন্য অপিহার্য। এদিকে সকলকে লক্ষ রাখার অনুরোধ জানান তিনি।

তিনি জানান, ‘কিছুক্ষণের মাঝেই আমি হাইয়াতুল উলইয়ার কর্মকর্তাদের কাছে এ ম্যাসেজ পৌঁছে দিবো। উনারা দ্রুত মিটিং ডাকবেন। হাইয়াতুল উলইয়ার পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণাও ইনশাআল্লাহ আপনারা পাবেন। এবং ছয় বোর্ডের ঘোষণাও স্ব-স্ব বোর্ড থেকে বোর্ডের অন্তর্ভূক্ত মাদরাসার কাছে যাবে। সে অনুযায়ী পুরো মাদরাসার শিক্ষা কার্যক্রম আগের মতো আবার চালু হবে।

এর আগে গতকাল (১৭ আগস্ট) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সাথে বৈঠক করেছিলেন তারা। সেখানে জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের মহাসচিব মুফতি মোহাম্মদ আলী এবং মাওলানা মুজিবুর রহমানও উপস্তিত ছিলেন। বৈঠকে তারা কওমি মাদরাসাগুলো খুলে দেওয়ার অনুরোধ করেন। সেসময় তিনি জানিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিষয়টি উপস্থাপন করবেন ও মাদরাসা খুলে দেওয়ার বিষয়ে অনুমতি চাইবেন তিনি। এরপরই আজ এ ঘোষণা এলো।

প্রসঙ্গত, ১২ জুলাই থেকে দেশের সব হাফিজিয়া মাদ্রাসা চালুর অনুমতি দিয়েছে সরকার। এরও আগে ১ জুন দেশের কওমি মাদ্রাসায় ছাত্রছাত্রী ভর্তির কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে অফিস খোলার অনুমতি দিয়েছিল সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here