এলকোহলের পরিচয় ও প্রকারভেদ

25

এলকোহলের পরিচয় ও প্রকারভেদ ঃ  

শিখো বাংলায়: এলকোহল হলো রঙহীন  এমন তরল পদার্থ যা বাষ্প হয়ে উড়ে যায় ৷ আর তা গঠিত হয় তিন প্রকারের গ্যাস তথা কার্বন, হাইড্রোজেন ও অক্সিজেন এর সমন্বয়ে ৷ এলকোহলের বহুপ্রকার আছে তবে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় দুই প্রকারঃ 

মিথাইল ও ইথাইল ৷ (1) মিথাইল এলকোহল অন্যান্য প্রকারের তুলনায় বিষাক্ত ও নেশা সৃষ্টিকারী ৷ যদি এই এলকোহল পান করা হয় তাহলে এর দ্বারা অন্ধত্ব সৃষ্টি হতে পারে এমনকি মৃত্যুও হতে পারে৷ পেইন্ট ও কাঠের পুলিশকে গলানোর জন্য ব্যবহার হয়৷ বিভিন্ন আতর এবং ঔষধ গলানোর ধাতু হিসেবেও  ব্যবহার হয় ৷

2: ইথাইল এলকোহলও নেশা সৃষ্টিকারী ৷ খুব দ্রুতগতিতে তা বাষ্প হয়ে উড়ে যায় ৷ এটা শরাবের রূহ এবং নেশার সৃষ্টির মূল উপাদান ৷ সাধারণ এলকোহল পানি থেকে হালকা হয় এবং পানির মধ্যে মিশে যায় ৷ বর্তমানে এলকোহল বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার করা হয় ৷ বিশেষ করে পেইন্ট, ঔষধ ,রং সাবান ইত্যাদি বানানোর ক্ষেত্রে ব্যবহার হয় ৷ ইথাইল জীবাণু দূর করার জন্য ক্ষতস্থান পরিষ্কার ও সিরিঞ্জ পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার হয়৷ কোন যৌগিক পদার্থকে ( বিভিন্ন বস্তু দিয়ে যা তৈরি হয় ) তরল রাখার জন্য ব্যবহার করা হয় ৷ হোমিও প্যাথিক ঔষধে  দ্রুত ক্রিয়া সৃষ্টির জন্য এবং এলোপ্যাথিক ঔষধে চেতনাবোধ হ্রাস  করার জন্য ইথাইল  ব্যবহার করা হয় ৷

 উল্লিখিত আলোচনার মাধ্যমে এলকোহল সম্পর্কে যেসব হাকিকত বের হয় তা নিম্নরূপঃ    

(1) এলকোহল একটি নেশা সৃষ্টিকারী বস্তু ৷

(2) তরল পদার্থে ঝাঁজ  সৃষ্টিকারী ৷

(3) যৌগিক পদার্থ তরলকারী বা তরল পদার্থের তরলতা দীর্ঘায়িতকারী ৷

দলিলঃ জাদীদ ফিকহী তাহকীকাতঃ 10/45( নাঈমিয়া দেওবন্দ) 

লেখক : মুফতী মাসউদুর রহমান ওবাইদী

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here