আসামে সরকারি মাদ্রাসা বন্ধের ঘোষণা বিজেপি মন্ত্রীর

16

শিখো বাংলায়: ভারতের আসামে সরকার পরিচালিত মাদ্রাসা বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন রাজ্যটির মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা।

বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, ‘সরকারি টাকায় কোনো ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালানোর অনুমতি দেওয়া হবে না। এই মর্মে নভেম্বরে আমরা একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করব। তবে বেসরকারি মাদ্রাসা নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই।’

‘আসামের চাণক্য’ হিসেবে পরিচিত হিমন্ত বিশ্বশর্মার এই বিবৃতির প্রতিক্রিয়ায় সংসদ সদস্য বদরুদ্দিন আজমল জানিয়েছেন, যদি বিজেপি সরকার মাদ্রাসা বন্ধ করে দেয় তাহলে আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচনে জিতে তার দল আবার তা চালু করবে।

তিনি বলেন, ‘আপনারা মাদ্রাসা বন্ধ করতে পারবেন না। বর্তমান সরকার যতই জোর করে তা বন্ধ করুক না কেন, আমরা ৫০-৬০ বছরের এই মাদ্রাসাগুলি ফের চালু করব।’

এর আগে ফেব্রুয়ারিতে হিমন্ত বিশ্ব শর্মা জানিয়েছিলেন, সরকার কেবল সরকারি মাদ্রাসাই বন্ধ করবে না। বন্ধ হবে সরকারের অর্থে চলতে থাকা সংস্কৃত টোলও। তিনি বলেছিলেন, কোনো ধর্মনিরপেক্ষ দেশে সরকারের অর্থে ধর্মীয় শিক্ষাদান চলতে পারে না।

তবে বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, ‘সংস্কৃত টোলের ব্যাপারটা ভিন্ন। সরকারি সংস্কৃত টোলের ক্ষেত্রে অভিযোগ, সেগুলির পরিচালনায় স্বচ্ছতা নেই। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখব।’

আসামে মোট ৬১৪টি সরকার পরিচালিত মাদ্রাসা রয়েছে। বেসরকারি মাদ্রাসার সংখ্যা প্রায় ৯০০। সেগুলির প্রায় সব ক’টিই জামিয়াত উলেমা দ্বারা পরিচালিত। সরকারি টোল রয়েছে প্রায় ১০০টি। বেসরকারি টোল রয়েছে পাঁচ শর বেশি। সরকারি মাদ্রাসাগুলি চালাতে আসাম সরকারের বার্ষিক ৩ থেকে  ৪ কোটি টাকা খরচ হয়। সরকারি টোলের ক্ষেত্রে বার্ষিক খরচ ১ কোটি টাকা।

খবর: টাইমস অব ইন্ডিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here